Deshebideshe tv

বিশ্বখ্যাত সুন্দরী দীপিকা পাডুকোনের ২৩টি অজানা দিক

বিশ্বখ্যাত সুন্দরী দীপিকা পাডুকোনের ২৩টি অজানা দিক

এই মুহূর্তে বলিউডের সবচেয়ে জনপ্রিয়, সফল, আকর্ষণীয় এবং হাজারো পুরুষের হৃদয় হরণকারী নায়িকাটি কে? এত গুণের অধিকারিণীটি আর কেউ নন, আকর্ষণীয় পায়ের সুন্দরী দীপিকা পাডুকোন। চলচ্চিত্র বোদ্ধা এবং সমালোচকদের ভুল প্রমাণ করে বর্তমান সময়ের নায়কদের সাথে তালে তাল মিলিয়ে চলছেন এই রূপসী নায়িকা। হাজারো পুরুষের হৃদয়ে সূচ ফোটানো সুন্দরী এই নায়িকার সম্পর্কে জানতে চান না এমন ভক্ত খুঁজলে পাওয়া যাবেই না। আর তাই দীপিকা পাডুকোন সম্পর্কে অজানা ২৩ টি তথ্য নিয়ে হাজির হলাম আপনাদের সামনে।

১। ভারতের জনপ্রিয় অভিনেত্রী দীপিকা পাডুকোন ডেনমার্কের কোপেনহেগেনে ১৯৮৬ সালের ৫ জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন। এবং তার বাবা-মা কঙ্কানি ভাষায় বেশ পারদর্শী।

২। শুনলে অবাক হবেন দীপিকা রীতিমত খেলোয়াড় পরিবারের মেয়ে। বাবা প্রকাশ আন্তর্জাতিক পর্যায়ের একজন নামী ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়, মা উজ্জলা একজন ট্র্যাভেল এজেন্ট এবং ছোটবোন আনিশা একজন গলফ খেলোয়াড়।

৩। টিনএইজ বয়সে দীপিকা বাবা প্রকাশের মতই ব্যাডমিন্টনে পটু ছিলেন। ব্যাডমিন্টন প্রতিযোগিতায় জাতীয় পর্যায়ের চ্যাম্পিয়ন হন আজকের আকর্ষণীয় লম্বা পায়ের অধিকারিণী দীপিকা পাডুকোন।

৪। বেঙ্গেলরের সফিয়া হাই স্কুলে পড়াশোনার পর মাউন্ট কেরমেল কলেজ থেকে স্নাতক পাস করেন।

৫। পছন্দের নায়কের তালিকায় রয়েছে আমির খান, শাহরুখ খান, জনি ড্যাপ, রিচার্ড গের, ব্র্যাড পিট, এবং অমিতাভ বচ্চনের মতো তারকারা।

৬। আরেক দিকে পছন্দের নায়িকাদের তালিকায় রয়েছে হেমা মালিনী, মাধুরী দীক্ষিত, শ্রীদেবী, কাজল, রানী মুখার্জি,প্রীতি জিনতা, সুস্মিতা সেন এবং জুহি চাওলার মতো অভিনেত্রীরা।

৭। রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে ক্লাস টেন পর্যন্ত খেলেছেন এই অভিনেত্রী। তারপর আইসিএসই বোর্ড পরীক্ষার জন্য খেলাকে এখানেই সমাপ্ত করেন দীপিকা।

৮। একই বছরে পরপর চারটি ব্লকবাস্টার হিট সিনেমা উপহার দেয়া একমাত্র বলিউড নায়িকা হওয়ার সম্মানটি অর্জন করেন দীপিকা।

৯। ব্যাডমিন্টনে চ্যাম্পিয়ন দীপিকা কখনোই খেলাকে পেশা হিসেবে নিতে চাননি।

১০। তবে দীপিকার বাবা কখনোই চাননি তার মেয়ে রূপালি পর্দায় প্রবেশ করুক। অনেক বাধার সম্মুখীন হয়ে পরবর্তীতে বাবাকে মানিয়ে সিনেমা জগতে প্রবেশ করেন দীপিকা।

১১। সর্বপ্রথম মডেলিং জগতে শখের বসে প্রবেশ করা দীপিকা আস্তে আস্তে চলচ্চিত্র জগতের প্রতি দুর্বল হয়ে পড়েন।

১২। ২০০৫ সালে ল্যাকমে ফ্যাশন উইকে অংশগ্রহণ করেন এই অভিনেত্রী। প্রথম অংশগ্রহণেই সাবাইকে তাক লাগিয়ে ‘মডেল অফ দ্যা ইয়ার’এর খেতাবটি ছিনিয়ে নেন।

১৩। এই অভিনেত্রীর পছন্দের ছবির তালিকায় রয়েছে, কাভি কাভি- লাভ ইজ লাইফ(১৯৭৬), ‘দিল ওয়ালে দুলহানিয়া লেজায়েঙ্গে(১৯৯৫)’, ‘দ্যা কালার অব পেরাডাইজ’(১৯৯৯), ‘সিন্ড্রেলা ম্যান’(২০০৫) এবং ‘ম্যারি পপিন্স’(১৯৬৪) ইত্যাদি।

১৪। দীপিকার জীবনের প্রথম ডায়ালগটি ছিল ‘কুত্তে, কামিনে, ভগবান কে লিয়ে মুঝে ছোর দে’। ছবির নাম ‘ওম শান্তি ওম’।

১৫। দীপিকার প্রিয় রং ধবধবে সাদা এবং ফিকে লাল।

১৬। সাউথ ইন্ডিয়ান খাবার খেতে খুব ভালবাসেন দীপিকার।

১৭। দীপিকার পছন্দের দেশের নাম ফ্রান্স। সময় পেলেই রোমান্সের শহর ফ্রান্সের অলিতে গলিতে ঘুরে বেড়াতে খুব পছন্দ করেন তিনি।

১৮। সুগন্ধি হিসেবে হুগো বস পারফিউমস সবথেকে বেশি পছন্দ করেন দীপিকা।

১৯। সম্প্রতি প্যারাসুট কোম্পানির বিজ্ঞাপনের জন্য ৫ কোটি টাকা নিয়েছিলেন।

২০। বোমণ্ড টাওয়ারে প্রায় ১৬ কোটি টাকা মূল্যের একটি ফ্ল্যাটের মালিক দীপিকা পাডুকোন। এবং এই ফ্ল্যাটটি তাকে তার সাবেক শিল্পপতি প্রেমিক সিদ্ধার্থ মালিয়া উপহার দেন।

২১। তিনটি ব্যয় বহুল গাড়ির মালিক দীপিকা পাডুকোন। তার এই গাড়ির তালিকায় একটি বিএমডব্লিউ রয়েছে।

২২। বলিউডে প্রবেশের পূর্বে অনুপম খেরের কাছ থেকে অভিনয়ে এবং শামাক দাভারের কাছ থেকে নাচে প্রশিক্ষণ নেন।

২৩। দীপিকার এ যাবত কালের প্রত্যেকটি সম্পর্কই দুবছর স্থায়ী ছিল। দীপিকা পাডুকোনের প্রেমিকের তালিকায় রয়েছেন রণবীর কাপুর(২০০৭-২০০৯ সাল পর্যন্ত এদের প্রেমের সম্পর্ক স্থায়ী হয়), সিদ্ধার্থ মালিয়া (২০১০-২০১২ সাল পর্যন্ত এদের প্রেমের সম্পর্ক স্থায়ী হয়), রণবীর সিং(২০১৩- চলমান)।