Deshebideshe tv

সুপারহিট সিনেমাগুলোর মজার মজার সব ভুল

সুপারহিট সিনেমাগুলোর মজার মজার সব ভুল

একটি গল্পকে কেটেছেঁটে রূপান্তর করা হয় চিত্রনাট্যে, আবার সেই চিত্রনাট্যকে নানা নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে কোটি কোটি টাকার বিনিয়োগে তৈরি করা একটি ছবি। প্রযোজক, পরিচালক এবং হাজার হাজার লোকের অক্লান্ত পরিশ্রম ও বুদ্ধির জোরেই সাফল্য অর্জন করতে পারে একটি ছবি। আচ্ছা, সিনেমা গুলো কি নিখুঁত হয়? কখনোই না! আপনার দেখা এবং ভীষণ প্রিয় কিছু সিনেমায় এমন কিছু ভুল আছে যেগুলো শুনলে রীতিমত অবাক হবেন আপনি। আর ভাববেন, ভুল গুলো আগে চোখে পড়েনি কেন?

দিওয়ার:
অমিতাভ বচ্চনকে অ্যাংরি ইয়াংম্যান হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন কোন ছবিটি দিয়ে বলতে পারবেন? ১৯৭৫ সালে মুক্তি পাওয়া যশ চোপড়া পরিচালিত ‘দিওয়ার’ ছবিটি দিয়ে। ছবিটিতে তখনকার সময়ের হাজারো নারীর মনে জায়গা করে নেয়া অমিতাভ বচ্চন ছাড়া এই ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন শশী কাপুরের মতো অভিনেতা। ৭০ দশকের অস্থির রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে দুই হতদরিদ্র ভাইয়ের অস্তিত্ব বাঁচিয়ে রাখতে জীবন সংগ্রামের উপর গড়ে ওঠে ছবিটির কাহিনী। এবার আসা যাক আসল কথায়, দিওয়ার ছবিটিতে দেখানো হয় অমিতাভ বচ্চন ৩৩ বছর যাবত পাকিস্তান কয়েদি হিসেবে জীবন-যাপন করছেন। অন্যদিকে এও দেখানো হয় যে অমিতাভের ২৮ বছর বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। কিন্তু কিভাবে সম্ভব! কোন উত্তর কি আছে?

কাহো না পেয়ার হে:
প্রথম ছবি দিয়ে ছক্কা পেটাতে সক্ষম হয় বর্তমান বলিউডের সুপার হিরো ঋত্বিক রোশন। ২০০০ সালের অন্যতম ব্লকবাস্টার হিট ছবির হিরোর তকমাটি লাগিয়ে ফেলে রাকেশ রোশন প্রযোজিত ‘কাহনা পেয়ার হে’ ছবিটি দিয়ে। নতুন মুখ আমিশা পাটেলের প্রাণবন্ত অভিনয় দর্শকের নজর কাঁড়তে সক্ষম হয়। ছবিটিতে দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় রাতারাতি সফল তারকাতে পরিণত হন ঋত্বিক রোশন। ছবিটি ব্লকবাস্টার হওয়ার পেছনে ভিন্নধর্মী গান এবং কাহিনীকে কারণ হিসেবে ধরা হয়। ছবির দ্বিতীয়ার্ধের শেষের দিকে দেখানো হয় রাজ ইন্ডিয়ায় আসতে না আসতেই হাতে গুলিবিদ্ধ হন। এখানেই শেষ নয় গুলিবিদ্ধ হওয়ার কিছুক্ষণ পরেই দেখা যায় সুস্থ বাহু নিয়ে দিব্যি গিটারে রোহিতের সুর তুলে যাচ্ছেন। যা প্রকৃত পক্ষে আসলে কতোটা সম্ভব! কে জানে?

বাজিগর:
আব্বাস-মাস্তান পরিচালিত বলিউড ক্রাইম থ্রিলার ‘বাজিগর’ মুক্তি পায় ১৯৯৩ সালে। 'সরস্বতীচন্দ্র' উপন্যাস থেকে অনুপ্রাণিত আব্বাস-মাস্তানের ‘বাজিগর’ ছবিটি। ছবিটিতে শাহরুখ খান, শিল্পা শেঠী ও কাজলের মতো জনপ্রিয় অভিনেতা অভিনেত্রীরা কাজ করেছেন। ছবির এক পর্যায়ে দেখানো হয়, প্রেমিকা শিল্পা শেঠীকে বাড়ির ছাদ থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেন শাহরুখ। ধাক্কা খেয়ে নিচে একটি গাড়ির উপরে পড়ে গেলে গাড়ির দরজার গ্লাস গুলো ভেঙ্গে গুড়গুড় হয়ে যায়। তার কিছুক্ষন পরেই দেখানো হয় অক্ষত সেই গাড়িটিতে করেই স্থান ত্যাগ করেন। এই ভুলটি আপনার চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখাতে হবে না। অনায়েসেই ধারা পড়ে যাবে পরিচালকের সতর্কহীনতা।

ওম শান্তি ওম:
ফারাহ খান পরিচালিত রোমান্টিক পুনর্জন্মের উপর নির্মিত ‘ওম শান্তি ওম’ ২০০৭ সালে মুক্তি পায়। ছবিতে অভিনয় করেন বলিউড সুপারস্টার শাহরুখ খান এবং হিন্দি ছবিতে প্রথম অভিষেক করা দীপিকা পাডুকোন। ২০০৭ সালে মুক্তি প্রাপ্ত ব্যবসা সফল ছবিগুলোর অন্যতম ‘ওম শান্তি ওম’। বলিউডের তারকাবহুল চলচ্চিত্রের খেতাবও অর্জন করে ফারাহ খানের এই ছবিটি। আরেকটি অজানা তথ্য, দীপিকার পাডুকনের প্রথম হিন্দি ছবিতে আপনারা যে কণ্ঠটি শুনতে পান তা খোদ দীপিকার নয় কণ্ঠটি দিয়েছেন মোনা ঘোষ শেঠী। ১৯৭০ এবং ২০০০সালের ফ্যাশন ট্রেন্ডের উপর নির্ভর করে ছবিটি তৈরি করা হয়। পুনর্জন্মের ব্যাপারটি অনেকটা অদ্ভুত। সেখানে শাহরুখ খানের তো পুনর্জন্ম ঘটে তাও আবার ট্যাটুসহ এবং মজার ব্যাপারটি হল। শাহরুখের হাতের ট্যাটুটি প্রজ্বলিত হতে থাকে এবং কিছুক্ষণ পর সেটা হারিয়ে যায়।